“ফেনীর পরশুরামে শ্বশুরবাড়ি থেকে মৌসুমি ফল কম দেওয়ায় স্ত্রী নির্যাতন”।। অনাকান্তির কন্ঠ

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
  • ৪২৪ বার পঠিত

মোঃ ছলিম উল্যাহ ভূঁইয়া, ছাগলনাইয়া, (ফেনী), প্রতিনিধিঃ
ফেনীর পরশুরামে শ্বশুরবাড়ি থেকে মৌসুমি ফল (আম, কাঁঠাল) কম দেয়ায় ইয়াকুব আলী(৩৫) নামক এক ব্যক্তি তার স্ত্রী ফারজানাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে এবং ইট দিয়ে থেঁতলে গুরুতর আহত করেছে।


গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে ফারজানাকে পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। উল্লেখিত ইয়াকুব আলী সাতকুচিয়া গ্রামের আবুল কাশেম ব্যান্ডেরের ছেলে। উত্তর চন্দনার ফারজানা আক্তার সুমির সাথে তার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে। এর আগেও বহুবার ফারজানাকে মারধরের অভিযোগে পরশুরাম থানায় মামলা দায়ের হলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে তা মীমাংসা করে দেয়।

ফারজানা আক্তার সুমি চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন তার স্বামী ইয়াকুব আলী একজন নেশাগ্রস্ত, মাতাল। এর আগেও যৌতুকসহ বিভিন্ন কারণে বিভিন্ন সময়ে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় তাকে মারধর করে এবং শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়।

একইভাবে রবিবার ২৭ জুন রাতে ইয়াকুব আলী নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ঘরে ঢুকে তার বাপের বাড়ি থেকে পাঠানো আম কাঁঠাল কম হয়েছে বলে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে তার হাত পা এবং মাথায় আঘাত করে এবং একটি ইট দিয়ে মাথা ও পিঠে থেঁতলে দেয়।

পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার রোকসানা সুরাইয়া ফারজানার শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে জখম করার চিহ্ন পাওয়া যায়। তার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ।

অভিযুক্ত ইয়াকুব আলী ও তার পিতা আবুল কাশেম ব্যান্ডেরের সাথে অভিযোগের বিষয়ে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা সত্ত্বেও তাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর