চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৫৩ বার পঠিত

ফেরদৌস সিহানুক শান্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রার্থী ও সমর্থকদের উপস্থিতিতে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়।

প্রতীক বরাদ্দ করেন নির্বাচন অফিসার ও কর্মকর্তা মো. মোতাওয়াক্কিল রহমান। জানা গেছে, মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোঃ মোখলেসুর রহমান নৌকা, স্বতন্ত্র বিএনপি নেতা মো. নজরুল ইসলাম নারিকেল গাছ, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী সামিউল হক লিটন মোবাইল ও স্বতন্ত্র জামায়াত নেতা মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল পেয়েছেন জগ প্রতীক।

 

সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১ নং ওয়ার্ডে জাহাঙ্গির কবির প্রতীক পেয়েছেন ব্রীজ, মোহাঃ ইফতিখার আহমেদ পেয়েছেন ডালিম , মোঃ শাহিন পেয়েছেন পানির বোতল. মোঃ রেদুয়ানুর রশিদ পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, মোঃ শফিকুল ইসলাম পেয়েছেন উটপাখি, মোহাঃ আব্দুল বশির পেয়েছেন পাঞ্জাবি, ২ নং ওয়ার্ডে মোঃ শহীদ হোসেন রানা পেয়েছেন পাঞ্জাবি, আসিফ খান নয়ন পেয়েছেন ডালিম, জিয়াউর রহমান আরমান পানির বোতল, মোঃ ইউসুফ আলী পেয়েছেন উটপাখি, আলী মহাম্মদ বদরুদ্দোজা মারুফ টেবিল ল্যাম্প, ৩ নং ওয়ার্ডে মোঃ আকতার হোসেন পেয়েছেন ব্ল্যাকবোর্ড, মোহাঃ এনামুল হক পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ আব্দুল মজিদ পেয়েছেন পাঞ্জবি, মোঃ জোহরুল ইসলাম পেয়েছেন গাজর, মোঃ রাজু আহমেদ পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ আনারুল হক পেয়েছেন ডালিম, শ্যামলী খাতুন পেয়েছেন ঢেঁড়শ, মোঃ বশির আহম্মেদ পেয়েছেন ব্রিজ, মোঃ রবিউল ইসলাম (রবি) পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, ৪ নং ওয়ার্ডে মোঃ কামাল আহমেদ রাজু উটপাখি, মোঃ আনোয়ারুল হক পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ আব্দুল আজিজ পেয়েছেন ডালিম, মোঃ মতিউর রহমান পেয়েছেন পাঞ্জাবি, ৫ নং ওয়ার্ডে মোঃ আব্দুল গনি পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ আব্দুল কাদের পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, মোঃ কুরবান আলী পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ আকবর আলী পেয়েছেন পাঞ্জাবি, শাবসালিন আহম্মদ পেয়েছেন ডালিম, ৬ নং ওয়ার্ডে মোঃ আব্দুল বারেক পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, আব্দুল হাকিম বাবু পেয়েছেন পাঞ্জাবি, মোঃ সালেহ উদ্দিন পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ মোক্তার হোসেন পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ শাহাবুল ইসলাম পেয়েছেন ডালিম, ৭ নং ওয়ার্ডে মোঃ আব্দুল মান্নান পেয়েছেন পাঞ্জাবি, মোঃ নুরুল ইসলাম পেয়েছেন ডালিম, মোঃ জিয়াউল ইসলাম পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ নুরুল ইসলাম মিনহাজ পেয়েছেন উটপাখি, ৮ নং ওয়ার্ডে মোঃ তৌহিদুল ইসলাম পেয়েছেন ডালিম, শাহিন আকতার পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ আব্দুস সালেক পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ মইদুল ইসলাম পেয়েছেন পাঞ্জাবি, ৯ নং ওয়ার্ডে মোঃ আঃ করিম পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ হাসান ইকবাল পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, মোঃ শামসুজ্জোহা পেয়েছেন পাঞ্জাবি, আফজাল হোসেন পেয়েছেন পানির বোতল ১০ নং ওয়ার্ডে মোঃ মঈন উদ্দিন বিশ^াস পেয়েছেন টেবিলি ল্যাম্প, মোঃ গোলাম ফারুক পেয়েছেন টিউবলাইট, মোঃ সুলতানুল ইসলাম পেয়েছেন পানির বোতল, তুষার আহমেদ পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ তহরুল ইসলাম বাবলু পেয়েছেন ব্রিজ, মোঃ তোহরুল ইসলাম পেয়েছেন ডালিম, মোঃ তৌহিদুল ইসলাম পেয়েছেন স্ক্রু ড্রাইভার, মোঃ মোজাম্মেল হক পেয়েছেন গাজর, মোঃ আব্দুর রাজ্জাক পেয়েছেন পাঞ্জাবি, মোঃ মমরেজুল আখতার পেয়েছেন ফাইল কেবিনেট, মোসাঃ শরিফা খাতুন পেয়েছেন ব্ল্যাকবোর্ড, ১১ নং ওয়ার্ডে বাদল আলী পেয়েছেন ব্রিজ, মোঃ সাইদুর রহমান পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ আব্দুল হাই পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ নাইমুল হক পেয়েছেন পাঞ্জাবি, মোঃ ফারুক হাসান পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম পেয়েছেন ডালিম, দেলোয়ার পেয়েছেন গাজর, ১২ নং ওয়ার্ডে মোঃ সাইদুর রহমান পেয়েছেন পাঞ্জাবি, মোঃ মুনসুর আলী পেয়েছেন ডালিম, মোঃ সুজাউদ্দিন পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ কবিরুল ইসলাম পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ ইব্রাহিম আলী পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, ১৩ নং ওয়ার্ডে মোহাঃ আব্দুল খালেক পেয়েছেন উটপাখি ও মোঃ তসিকুল ইসলাম পেয়েছেন পাঞ্জাবি , ১৪ নং ওয়ার্ডে মোঃ আনারুল ইসলাম পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, মোঃ গোলাম কবির পেয়েছেন পানির বোতল , মোঃ সামিম আহাম্মেদ পেয়েছেন উটপাখি , মোঃ ওহিদুজ্জামান পেয়েছেন পাঞ্জাবি, মোঃ আলী হোসেন পেয়েছেন গাজর, মোঃ সেরাজুল ইসলাম পেয়েছেন ব্রিজ, মোঃ দুলাল আলী পেয়েছেন ডালিম, ১৫ নং ওয়ার্ডে মোঃ মাসুদুল হক (নিখিল) পেয়েছেন ব্ল্যাক বোর্ড, মোঃ মেরাজুল ইসলাম পেয়েছেন ব্রিজ, মোঃ শখাওয়াত হোসেন (শওকাত) পেয়েছেন উটপাখি, মোঃ আশিক পারভেজ পেয়েছেন পানির বোতল, মোঃ রাশিদুল ইসলাম ডালিম, আজিজুর রহমান পেয়েছেন টেবিল ল্যাম্প, লেনিন প্রামানিক পেয়েছেন পাঞ্জাবি ও মোঃ মহিফুল ইসলাম সোহাগ পেয়েছেন গাজর এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর (১, ২ ও ৩) পদে ১ নং আসনে মোসাঃ ফেরদৌসী খাতুন পেয়েছেন দ্বিতল বাস, মোসাঃ নাজনীন ফাতেমা জিনিয়া পেয়েছেন চশমা, সুলতানা বেগম পেয়েছেন অটোরিক্সা, মোছাঃ সেলিনা বেগম পেয়েছেন টেলিফোন, মোসাঃ মোসলেমা বেগম পেয়েছেন কলম, মোসাঃ আমিনা বেগম পেয়েছেন জবা ফুল, মনোয়ারা বেগম পেয়েছেন আনারস, ২ নং আসনে (৪, ৫ ও ৬) মোসাঃ নাজনীন নাহার পেয়েছেন পেয়েছেন চশমা, মোসাঃ মাসকুরা বেগম পেয়েছেন আনারস, মোসাঃ কারিমা আখতার বানু পেয়েছেন অটোরিক্সা, ৩ নং আসনে (৭, ৮ ও ৯) মোসাঃ সিদ্দিকা সিরাজুম মনিরা পেয়েছেন অটোরিক্সা, নাজনীন নাহার পেয়েছেন চশমা, ৪নং আসনে (১০, ১১ ও ১২) মোসাঃ শাকেরা খাতুন পেয়েছেন জবাফুল, মোসাঃ আকতারা বেগম পেয়েছেন চশমা, মোসাঃ শরীফা খাতুন পেয়েছেন অটেরিক্সা ও সুমি বেগম পেয়েছেন আনারস, ৫ নং আসনে (১৩, ১৪ ও ১৫) মোসাঃ আনোয়ারা বেগম পেয়েছেন চশমা, মোসাঃ বিউটি বেগম পেয়েছেন অটোরিক্সা, রহিমা বেগম পেেেয়ছেন আনারস, রাজিয়া বেগম পেয়েছেন জবাফুল, মোসাঃ আমেনা বেগম পেয়েছেন টেলিফোন ও মোসাঃ নার্গিস জামান পেয়েছেন কলম প্রতীক।

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর