চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা পরিষদে স্থাপন করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু কর্নার

ফেরদৌস সিহানুক শান্ত
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২১
  • ২১০ বার পঠিত

ফেরদৌস সিহানুক শান্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ

স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর স্মৃতিকে স্মরণীয় করে রাখতে জেলা পরিষদ চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্থাপন করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু কর্নার। আজ শনিবার বিকেল পৌনে ৫টায় বঙ্গবন্ধু কর্নারের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর।

বঙ্গবন্ধু কর্নার উদ্বোধনের পর তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সারাজীবন মানুষের অধিকার রক্ষায় কাজ করে গেছেন। তার নেতৃত্বে আর আমাদের দেশ হানাদার মুক্ত হয়েছিল।

আমরা কোনোভাবেই তাদের ঋণ শোধ করতে পারবো না। বাঙালি জাতির যে আত্মবিশ^াস সেটি সূচনা করেছিলেন ১৯৭১ সালের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমানের ভাষনের মধ্যদিয়ে। তিনি বলেছিলেন, আমাদের দাবায়ে রাখতে পারবা না, এ বাঙালি জাতিকে দাবায়ে রাখতে পারেনি।

তিনি বৈষম্য ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে সারাজীবন রাজনীতি করে গেছেন এবং দরিদ্র মানুষের মুখে হাসি ফোটানোয় ছিল তাঁর মূল লক্ষ্য। তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সে স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন। আমাদের লক্ষ্য একটাই দেশের উন্নয়নের জন্য একসাথে কাজ করা।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানী শাসন আর শোষনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ কণ্ঠস্বর হিসেবে কাজ করেছেন। একসময় স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতির খেলা চলেছে। পাঠ্যপুস্তকে সুপরিকল্পিতভাবে তার নাম মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করেছে। ইতিহাসের পাতা থেকে বঙ্গবন্ধুকে বাদ দিয়ে কখনই কিছুই সম্ভব নয়।

বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন বলেই আজ আমরা মুক্ত এবং সবাই স্বাধীনতার সুফল ভোগ করছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে অন্তরে ধারণ করতে হবে এবং সে অনুযায়ী কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম থেকে শিক্ষা নিয়ে যদি তা আমাদের জীবনে কাজে লাগাতে পারা যায়, তা হবে বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা ও স্মরণ করার শ্রেষ্ঠ উপায়।

নতুন প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস জানাতে বঙ্গবন্ধু কর্নার উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে জানার একটি নতুন পথ তৈরি হলো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণা দেয়ার সময় নানান ব্যক্তি নানান রকম কথা বলেছিলেন।

তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন সদিচ্ছা থাকলে একসাথে কাজ করে সবকিছুই অর্জন করা সম্ভব। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করে ২০৪১ সালে বিশ্বে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করছেন। এর আগে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মইনুদ্দীন মন্ডল সম্মেলন কক্ষের উদ্বোধন করেন।

এসময় বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের অন্যান্য সদস্য, জাতীয় ৪ নেতা এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানীদের নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আশরাফুল হক, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মোঃ এনামুল হক ও জেলা পরিষদের সদস্যবৃন্দ। উদ্বোধনের পর প্রধান অতিথি বঙ্গবন্ধু কর্নারে রক্ষিত তাঁর বর্ণাঢ্য রাজনীতি জীবনের বিভিন্ন ছবি ঘুরে ঘুরে দেখেন।

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর