রাজশাহীতে সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি

কাজী এনায়েত উল্লাহ,
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২২
  • ৫৫ বার পঠিত

রাজশাহীতে সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি

কাজী এনায়েত উল্লাহ, রাজশাহীঃ

রাজশাহীর বাগমারায় উপজেলার রক্ষিতপাড়া গ্রামে সাংবাদিকদের অকাণে অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ করে হামলা করার চেষ্ঠা চালায় দুলাল নামের এক দুর্বৃত্ত। বুধবার (১৩ এপ্রিল) বিকেলে পালোপাড়া গ্রামে এ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় গালিগালাজের একটি ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে।

জানা যায়, দুর্বৃত্ত দুলাল বাগমারার উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নের রক্ষিতপাড়া গ্রামের মৃত ইসরাইলের ছেলে দুলাল হোসেন (৪০)। সে মোহনপুর উপজেলার ধামিন নওগাঁ উচ্চ বিদ্যালয়ে ল্যাব সহকারি পদে চাকুরিরত। বর্তমানে সে অত্র ইউনিয়নের পালোপাড়া গ্রামে বসবাস করে। এলাকায় দুলাল একজন সুদের ব্যাবসায়ী ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী নামে পরিচিত।

আউচপাড়া ইউনিয়নের পালোপাড়া গ্রামে পুকুর খনন করাকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ্বের খবরে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। পথিমধ্যে ঘটনাস্থল থেকে ফিরছিলেন বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক সুফিয়ান ও তার টিম। আর ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন আউচপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ডিএম শফিকুল ইসলাম শাফি। সাংবাদিকদের উপস্থিতির পরেই ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন তিনি। চেয়ারম্যান ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সাথে সাথেই দুলাল নামে এক দুর্বৃত্ত উপস্থিত সাংবাদিকদের অকারণে অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ ও মেরে ফেলার হুকমি দিতে থাকে। একপর্যায়ে সাংবাদিকরা প্রতিবাদ করলে সে হোন্ডা টেনে চিল্লাফাল্লা করতে করতে চলে যায়।

পরে স্থানীয় জনতা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার পর সাংবাদিকরা ঘটনাস্থল থেকে ইউনিয়ন পরিষদে চলে যান। সেখানে গিয়েও সাংবাদিকদের দেখে চেয়্যারমান সাফির কাছ থেকে দুলাল হোসেন জোর করে (এক্সেভেটর) ভ্যেকুর চাবি নিয়ে অবৈধভাবে পুকুর খনন চালিয়ে যাবে বলে অসাভাবিক আচরণ করে। তাতে সে জেল খাটতেও রাজি আছে এমন কথা বলে। এছাড়াও সাংবাদিকদের মারতে উদ্যত হয় তিনি।

ধামিন নওগাঁ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ডিএম জিয়াউর রহমান এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।

আউচপাড়া ইউপি চেয়্যারমান সাফিকুল ইসলাম সাফি বলেন, সাংবাদিকদের অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ ও হামলার হুমকি এটি নিতান্তই ন্যাক্কারজনক ঘটনা। যেহেতু এটার সত্যতা নিশ্চিত করতে ভিডিও আছে, সেহেতু এই দুলারের উপযুক্ত শাস্তি হওয়া দরকার আছে।

বিষয়টি অবগত করা হলে বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহমেদ সাংবাদিকদের লিখিত অভিযোগের পরামর্শ দেন।

এবিষয়ে বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক সুফিয়ান বলেন, গালিগালাজের ভিডিও ফুটেজ পেয়েছি। তিনিও থানায় অভিযোগের পরামর্শ দেন। ব্যাপারে বাগমারা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান সাংবাদিকরা।

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর