সয়াবিন ও পেট্রোলের অস্বাভাবিক সংকটে জনদুর্ভোগের প্রেক্ষিতে এবি পার্টির প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৪ মে, ২০২২
  • ২৪৬ বার পঠিত

সয়াবিন ও পেট্রোলের অস্বাভাবিক সংকটে জনদুর্ভোগের প্রেক্ষিতে এবি পার্টির প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত

 

মারুফ সরকার ,ঢাকা :

আজ ১৪ মে শনিবার সকাল এগারোটায় সয়াবিন ও পেট্রোলের অস্বাভাবিক সংকটে জনদুর্ভোগের প্রেক্ষিতে আমার বাংলাদেশ পার্টি (এবি পার্টি) ঢাকা মহানগর উত্তরের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। এবি পার্টি ঢাকা মহানগর উত্তরের আহবায়ক আলতাফ হোসাইনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ফিরোজ কবিরের সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবি পার্টির যুগ্ম আহবায়ক প্রফেসর ডাঃ মেজর (অবঃ) আব্দুল ওহাব মিনার। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পার্টির যুগ্ম আহবায়ক ও সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম এবং পার্টির সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম সদস্য সচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহবায়ক বিএম নাজমুল হক, কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, দক্ষিণের সদস্য সচিব আনোয়ার সাদাত টুটুল ও যুব পার্টির কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক এবিএম খালিদ হাসান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাঃ আব্দুল ওহাব মিনার বলেন, আজ দেশে প্রত্যেকটি জিনিসের দাম আকাশ ছোয়া। দেশের প্রত্যেক প্রান্তের মানুষ জানে দেশে কি হচ্ছে। যারা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে তেল গুদামজাত করেছে, যাদের গোডাউন থেকে তেল উদ্ধার করা হচ্ছে তাদের রাজনৈতিক পরিচয় আমরা জানতে চাই, জাতি জানতে চায় তারা কারা? অবিলম্বে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য নিয়ে যে সকল সিন্ডিকেট রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, জনগণের দাবি মানুন নাহয় পদত্যাগ করুন। দেশে একটি নিরপেক্ষ অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধিনে সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন।
অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেন, পাকিস্তান আমলে এদেশের মানুষ যখন অভাবে ভাত খেতে পাচ্ছিল না তখন গভর্ণর ফিরোজ খান নুনের স্ত্রী ভিকারুননিসা নুন বলেছিলেন মানুষ ভাত না পেলে কি হবে পোলাও খাবে, সেদিন তার অজ্ঞানতায় মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়েছিল। কিন্তু আজ বহুদিন পর মানুষের দূঃখ দূর্দশায় উপহাস করে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বলছেন সয়াবিন কিনতে না পারলে কি হবে দেশের মানুষ বাদামের তেল খাবে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জনগণকে নিয়ে এই পরিহাস দীর্ঘস্থায়ী হবেনা। আওয়ামিলীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতারাও আজ শত কোটি টাকা লুট করে পাচার করেছে। পাচার এমন অবস্থায় গেছে আগামী ছয় মাসের মধ্যে দেশের অবস্থা শ্রীলঙ্কা থেকেও ভয়াবহ হবে।

মজিবুর রহমান মন্জু বলেন, ডলার খেকো হাজার হাজার কোটি টাকা পাচারকারী এই সরকারের কারণে দেশে আজ ভয়ানক অর্থ ও খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। সামনে এই সংকট আরো ভয়াবহ রূপ ধারন করবে। এদের সর্বগ্রাসী দূর্নীতির কারণে এ বছরে হজ্বযাত্রীদের দ্বিগুন টাকা খরচ করে হজ্বে যেতে হবে।
ব্যবসায়ীদের কাঁচামাল আমদানী ব্যয় অনেক বেড়ে গেছে। তিনি বলেন আমাদের দাবি এই নির্বোধ জালেম সরকারে কাছে না। আমাদের এই আহবান, শ্লোগান ও দাবি মূলতঃ জাতির বিবেকের কাছে। জনতার আদালতের কাছে, ইতিহাসের কাছে। আমরা হলাম মূসা-ঈসা এবং আখেরী নবীর মুক্তি আন্দোলনের পতাকাবাহী। আর রাতের আঁধারে ভোট খেকো এই সরকার আইউব, ইয়াহিয়া, বাকশাল ও নমরুদ-ফেরাউনের উত্তরসূরী। তিনি এদের হাত থেকে জাতিকে বাঁচাতে ধর্ম বর্ণ দল মত নির্বিশেষে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন এবি পার্টির সহকারী সদস্য সচিব শাহ আব্দুর রহমান, যুবনেতা এম ইলিয়াস আলী, আনোয়ার ফারুক কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সেলিম খান, সুলতানা রাজিয়া, মিনহাজুল আবেদীন শরীফ, শফিউল বাসার, আমিরুল ইসলাম নূর, কেফায়েত হোসেন তানভীর, ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল ইসলাম, আব্দুর রব জামিল, শীলা আক্তার, শাহজাহান ব্যাপারী, ছাত্র নেতা মোহাম্মদ প্রিন্স , মোজাহিদ তারেক আকবর, সাইফুল মির্জা, মাসুদ জমাদ্দার রানা, জেসমিন আক্তার মুক্তা, ফেরদৌস আক্তার অপি সহ মহানগর উত্তর, দক্ষিণের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর