বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপ-নির্বাচন মান্নান আকন্দসহ দুই প্রার্থী ফিরলেন নির্বাচনী লড়াইয়ে: তবে বাদ রইলেন হিরো আলম

মিরু হাসান বাপ্পী বগুড়া জেলা সংবাদদাতা
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ১৬ বার পঠিত

মিরু হাসান বগুড়া জেলা সংবাদদাতা

 

বগুড়ার দু’টি আসনে সংসদ উপনির্বাচনে বাতিল হওয়া ১১ স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে দু’জন তাদের প্রার্থীতা ফিরে পেয়েছেন। তারা হলেন ঃ বগুড়া-৪ (কাহালু ও নন্দীগ্রাম) আসনে সাবেক বিএনপি নেতা কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল ও বগুড়া-৬ (সদর) আসনে সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মান্নান আকন্দ।

বগুড়া জেলা নির্বাচন অফিসার মাহমুদ হাসান জানান, প্রার্থীতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপীলের শুনানী শেষে রবিবার নির্বাচন কমিশন এক আদেশে ওই দু’জনের প্রার্থীতা বৈধ বলে ঘোষণা দেন।

ওদিকে রবিবার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে ওই দু’টি আসনে কোন প্রার্থীই তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন নি। ফলে ওই দু’টি আসনে এখন পর্যন্ত মোট ১৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতায় থেকে গেলেন। এর মধ্যে বগুড়া-৪ আসনে পাঁচজন এবং বগুড়া-৬ আসনে রইলেন ৮জন। তবে প্রার্থীতা ফিরে না পাওয়ায় আলোচিত প্রার্থী আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম উচ্চ আদালতে রীট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বাতিল হওয়া স্বতন্ত্র অন্য প্রার্থীরা কি করবেন সেটি এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা যায়নি। প্রতিদ্বন্দ্বী এসব প্রার্থীর মধ্যে ১৬ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি ওই দুই আসনে ভোট গ্রহণের কথা।

বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের বিএনপি দলীয় দুই সংসদ সদস্য দলীয় সিদ্ধান্তে গত বছরের ১১ ডিসেম্বর পদত্যাগ করেন। এরপর নির্বাচন কমিশন আসন দু’টি শূন্য ঘোষণার পর উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। সেই অনুযায়ী গত ৫ জানুয়ারি ওই দু’টি আসনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলে মোট ২২জন তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। তবে ৮ জানুয়ারি যাচাই-বাছাইকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা বগুড়ার জেলা প্রশাসক ১০ স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং বাংলাদেশ কংগ্রেস নামে একটি রাজনৈতিক দলের এক প্রার্থীসহ মোট ১১জনের মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করেন। এরপর তারা ওই আদেশের বিরুদ্ধে ৯ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশনে আপীল করেন। গত ১২ জানুয়ারি শুনানী হয় এবং রবিবার আদেশ দেওয়া হয়।

বগুড়া-৪ আসনে বর্তমানে যে পাঁচজন প্রার্থী রয়েছেন তারা হলেনঃ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ মনোনীত সাবেক সংসদ সদস্য একেএম রেজাউল করিম তানসেন, জাতীয় পার্টি মনোনীত শাহীন মোস্তফা কামাল, জাকের পার্টির প্রার্থী আব্দুর রশিদ সরদার, বাংলাদেশ কংগ্রেসের তাজ উদ্দিন মণ্ডল এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক বিএনপি নেতা কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল।

বগুড়া-৬ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী ৬ প্রার্থী হলেনঃ আওয়ামী লীগ মনোনীত রাগেবুল আহসান রিপু, জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমর, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের প্রার্থী ইমদাদুল হক ইমদাদ, জাকের পার্টির প্রার্থী ফয়সাল বিন শফিক, গণফ্রন্টের আফজাল হোসেন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নজরুল ইসলাম এবং দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী যথাক্রমে মাছুদার রহমান হেলাল ও আব্দুল মান্নান আকন্দ। প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম ক্ষুব্ধ হয়েছেন। প্রতিদিনের বাংলাদেশকে তিনি বলেন, আমি ন্যায় বিচার পাইনি। তাই উচ্চ আদালতে যাব। বগুড়ার দু’টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, এর আগে ২০১৮ সালেও তার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছিল। পরে উচ্চ আদালতের নির্দেশে তিনি প্রার্থীতা ফিরে পেয়েছিলেন।

বগুড়া জেলা নির্বাচন অফিসার মাহমুদ হাসান জানান, তফসিল অনুযায়ী প্রতিদ্বন্দ্বী সকল প্রার্থীর মাঝে ১৬ জানুয়ারি সকাল ১১টায় প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। তিনি বলেন, প্রতীক বরাদ্দের পর পরই নিয়ম অনুযায়ী প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা নির্বাচনে প্রচারের সুযোগ পাবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর